মিশন ইম্পসিবল মুভি সিরিজ | পর্দার আড়ালের ৬টি অজানা তথ্য

75

হলিউডের বিখ্যাত অভিনেতা টম ক্রুজ তার মিশন ইম্পসিবল মুভি সিরিজ ফ্রাঞ্চাইজ নিয়ে এসেছিলেন আজ থেকে প্রায় বাইশ বছর আগে। দুর্ধর্ষ সব অভিযান, বার বার কাহিনীর মোড় পাল্টে যাওয়া, ডাবল এজেন্টদের বেঈমানি, এক্সাইটিং থিম সং, আর টম ক্রুজের নিজের দেওয়া বিভিন্ন স্ট্যান্ট- সব মিলিয়ে মিশন ইম্পসিবল মুভি সিরিজ বর্তমান সময়ের সেরা ব্লকবাস্টার ফ্র্যাঞ্চাইজে পরিণত হয়েছে। থ্রিলার মাস্টারের পক্ষ থেকে আমাদের আজকের আয়োজনে “মিশনঃ ইমপসিবল” সিরিজের বিভিন্ন মুভিগুলোর পেছনের মজার কিছু ট্রিভিয়া ও অজানা তথ্য তুলে ধরার চেষ্টা করবো। আশা করি ভিডিওটি ভালো লাগবে সবার।

১. মিশন ইম্পসিবল ওয়ান

প্রথম “মিশন: ইম্পসিবল” মুভিতে রেস্টুরেন্টের ভেতর অ্যাকুরিয়াম বিস্ফোরণের একটা আইকনিক দৃশ্য ছিলো। মজার ব্যাপার হচ্ছে এই বিস্ফোরণের দৃশ্যটি ভিন্ন দুই দেশে শ্যুট করা হয়। অ্যাকুরিয়াম ফাটার দৃশ্যটি ধারণ করা হয়েছিল ইনডোরে, প্যারামাউন্ট স্টুডিওর ভেতরে। আর টম ক্রুজের রাস্তায় চলে আসার পরের দৃশ্যটি শুটিং করা হয়েছিল প্রাগ শহরের রাস্তায়। এখানে কয়েকশো গ্যালন পানি বিস্ফোরণের যে দৃশ্যটি দেখানো হয় তা ছিল আসল, এতে কোনো ভিজুয়াল ইফেক্ট ব্যবহার করা হয়নি।

. মিশন ইম্পসিবল ২

মিশন: ইম্পসিবল ২ শুরু হয় টম ক্রুজের ভয়ংকর এক পাহাড়ে চড়ার দমবন্ধ করা দৃশ্য দিয়ে। পরিচালক জন ইয়ু চেয়েছিলেন এই দৃশ্য ধারণ করার জন্য কোন নকল সেটের ব্যবহার করতে। কিন্তু টম ক্রুজের আপত্তির কারণে কোনো নকল পাহাড় কিংবা সেফটি নেট ব্যবহার করা হয়নি। ইয়ু শ্যুটিং এর সময়ে এতই ভয় পেয়েছিলেন যে বারবার চোখ বন্ধ করে ফেলছিলেন। এই শুটিং এর এক পর্যায়ে ক্রুজ ১৫ মিটার উঁচু থেকে একটা লাফ দিতে গিয়ে কাঁধে আঘাত পান। এটি টম ক্রুজের সবচেয়ে স্মরণীয় স্ট্যান্টের একটি।

“মিশন ইমপসিবল” মুভি সিরিজের অজানা তথ্য নিয়ে আমাদের বানানো ভিডিও প্রতিবেদনটি দেখুন।

৩. মিশন ইম্পসিবল ৩

“মিশন: ইম্পসিবল ৩” এ একটা আইকনিক অ্যাকশন দৃশ্য ছিল। ব্রিজের ওপর দিয়ে টম ক্রুজ পালাচ্ছিলেন আর ওপর থেকে ছোড়া একটা মিসাইল এসে সেখানে বিস্ফোরিত হয়। বিস্ফোরণের ধাক্কায় দেখা যায় যে টম ক্রুজ ছিটকে গিয়ে একটা গাড়ির ওপর পড়েন। এই দৃশ্যটিতে মিসাইল বিস্ফোরণের ব্যাপারটা সিজিআই করে বসানো হলেও, ক্রুজের গাড়ির ওপরে আছড়ে পড়ার দৃশ্যটা সত্যিই শুট করে হয়েছিল। এবং এই শটটা কিন্তু একবারে ওকে হয়নি, মাল্টিপল টেক নিতে হয়েছে। ফলে বেশ কয়েকবার টম ক্রুজকে গাড়ির ওপর সত্যিই আছড়ে পড়তে হয়েছে। নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন কতোটা ডেডিকেশন নিয়ে কাজ করেছেন টম ক্রুজ।

. মিশন ইম্পসিবল ৪

মিশন ইম্পসিবল সিরিজের ৪র্থ মুভি ঘোস্ট প্রটোকল এ বিশ্বের উচ্চতম ভবন বুর্জ খলিফায় টম ক্রুজের পাগলাটে স্ট্যান্টের কথা সম্ভবত সবারই জানা। এই দৃশ্যের শুরুতে দেখা যায় টম ক্রুজ জানালা খুলে ঝাঁপ দিয়ে বুর্জ খলিফার একটি স্কাইস্ক্র্যাপার বরাবর যাওয়া শুরু করেন। গায়ের সাথে হারনেস আটকানো থাকলেও কোনো স্ট্যান্টম্যান ছাড়াই প্রায় ২৭২২ ফুট উচ্চতায় গগনচুম্বী ভবনে ঝুলে থেকে দৃশ্যটির শ্যুটিং করার কথা টম ক্রুজ ছাড়া অন্য কোন অভিনেতা হয়তো ভাবতেও পারবেন না!

. মিশন ইম্পসিবল ৫

মিশন ইম্পসিবল সিরিজের ৫ম মুভি রোগ ন্যাশনে ১২০ ফিট উপরের কিনার থেকে পানিতে ঝাঁপ দিতে দেখা যায় টম ক্রুজকে। উদ্দেশ্য ছিল- পানির নিচে এক সিকিউরিটি ভল্ট খোলা। অনেকেই জানেন না যে এই বিশেষ অ্যাকশন দৃশ্যটিতে অভিনয়ের জন্য ক্রুজ ছয় মিনিট দম ধরে রাখার প্রশিক্ষণ নেন। এই প্রশিক্ষণ নেবার সময়ে তিনি একাধিকবার জ্ঞান হারিয়ে ফেলেছিলেন। এমনকি দৃশ্যটি যখন শ্যুট করা হয়, তখনও তিনি ডুবে যাচ্ছেন ভেবে স্ট্যান্ট কো-অরডিনেটররা বেশ কয়েকবার তাকে টেনে তুলে ফেলেছিল পানি থেকে। এতে ক্রুজ বিরক্ত হচ্ছিলেন।

৬। মিশন ইম্পসিবল ৬

আগের মুভিগুলোর সব স্ট্যান্ট ছাড়িয়ে যাবার জন্য সিরিজের ষষ্ঠ ছবিতে মারাত্মক এক ঝুঁকিপূর্ন স্টান্ট নিয়েছেন টম ক্রুজ। তিনি উচ্চ অ্যাটিচুডের স্কাইডাইভ দেন এই মুভিতে। যাকে বলা হয়ে থাকে হ্যালো জাম্প। এর জন্য সাধারণত বিভিন্ন মিলিটারি সরঞ্জাম ব্যবহার করা হয়। কিন্তু তাতে মুখ ঢেকে যাবে বলে শ্বাসপ্রশ্বাসের জন্য আলাদা কিছু সরঞ্জাম ব্যবহার করেন টম ক্রুজ। ২৫,০০০ ফুট উচ্চতা থেকে ঝাঁপ দেবার পরে মাটি থেকে ২,০০০ ফিট উপরে প্যারাসুট খোলে। পুরো সময়টাতেই ক্রুজ ক্যামেরার সামনে এক্সপ্রেশন দেখিয়ে গেছেন। সম্ভবত একমাত্র টম ক্রুজের পক্ষেই এমন দৃশ্যে অভিনয় করা সম্ভব!

স্কাইডাইভ এর মতো আরও ভয়ানক কিছু খেলা সম্পর্কে জানতে পড়ুন।
পৃথিবীর সবচেয়ে ভয়ংকর ৫টি খেলা

উল্লিখিত ট্রিভিয়াগুলো ছাড়াও মিশন ইমপসিবল মুভি সিরিজ এর এমন অসংখ্য বিষয় আছে যা অনেকেরই অজানা। আগামীতে সম্ভব হলে আমরা এই নিয়ে আরও একটি আর্টিকেল পোষ্ট করবো। ভালো থাকুন সবাই। আর আপনি যদি মুভি, টিভি সিরিজ ও বিনোদন জগত নিয়ে মেতে থাকতে পছন্দ করেন, তাহলে নিয়মিত চোখ রাখুন আমাদের থ্রিলার মাস্টার ওয়েব পোর্টালে অথবা সাবস্ক্রাইব করে রাখতে পারেন আমাদের থ্রিলার মাস্টার ইউটিউব চ্যানেলটি।

আরও পড়ুন:

 

মন্তব্য লিখুন
SHARE
ইশতিয়াক রেহমান থ্রিলার মাস্টার ওয়েব পোর্টাল এর স্বপ্নদ্রষ্টাদের মধ্যে একজন। তিনি পড়াশোনা করছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস বিভাগে। একাডেমিক স্টাডির পাশাপাশি তিনি ভালবাসেন নন ফিকশন লেখালেখি করতে। এছাড়াও তিনি ওয়েব ডিজাইন, গ্রাফিক্স ডিজাইন, ভিডিও মেকিং ইত্যাদি কাজেও দক্ষ।